Loading...

উৎসর্গের অন্তরাল ২

Support Us or Donate Some Love for Us



addmiin Administrator

লেখকঃ মো মাসুদুর রহমান সাগর
এস এস সি’২০
বগুড়া জিলা স্কুল, বগুড়া

আমি প্রতি পূর্ণিমার চাঁদ রাতে দিঘির সেই পদ্ম ফোটা জলকলঙ্কে তোমায় দেখতে পাই।

আমি ফিলোমেনের উদাস অলস গানে তোমার নাম জপতে চাই।

আজ অন্যের চোখে চোখ রেখে হাসো তুমি, বন্ধু আছো সুখে তুমি; আমিও আছি অনেক সুখে কিন্তু এ সুখের দিনে আজ তুমি কাছে নাই।

স্বপ্ন দেখেছি হাজার বছর পথ চলবো হাতে হাত রেখে কিন্তু আজ আর কোন স্বপ্নে আমার পাশে তুমি নাই।

আজ তুমি নতুন মানুষ; ভিন্ন তোমার জগৎ, আমার জগতে তুমি-ই ছিলে, আজ তোমাতে আমি নাই।

বাস্তব হারা হয়ে আমি আজ লিখছি কবিতা, অ্যালবামগুলোর বাহিরে কি মনে পড়ে আমার সেই সাদা- কাল ছবিটা?

ভবের মাঝে হারিয়ে তুমি কর্মালয়ে কার নিচ্ছ খবর? চেয়ে দেখো নিজ প্রাণে, দেখতে পাবে ছেঁড়া কাফনে পড়ে আছে একটি কবর।

মানুষ মরে না সেদিন যেদিন তার দম ফুরায়, আমি এক জিন্দালাশ হয়েছি যেদিন অন্য কেউ তোমার বাসরে শিকল লাগায়।

আজ তোমার কোলে একটি জীবন বড় হচ্ছে ধীরে ধীরে; অন্যদিকে আমার তনুর রক্ত শুকিয়ে যাচ্ছে ক্রমে ক্রমে।

একদিন তোমাকে দেখেছি শীতের শিশিরে; শ্রাবণের বৃষ্টিতে; চাঁদনী রাতে জ্যোছনার আলোর ভিড়ে; কাঠফাটা রোদের সেই সোনালী কিরণে – কিন্তু আজ তুমি কর্পূরের মত মিলিয়ে গেলে কোন গহীন শূন্যের অন্তরালে?

আজ আমার চোখের নিচে কালো দাগ তোমার উঠানে সুখের সাঁঝ।

আমার জীবনে আজ কালো ধোঁয়া একরাশ, তোমার জীবনে শাপলা ফুলের সুবাস!

তোমার হাতে আজ অন্য কারো হাত, আমার জীবনে শুধু হতাশার বজ্রপাত!

আজ তুমি অন্যের সাথে বেঁধেছো বৃহন্বয়, সখি আমার জীবন কি শুধুই যাতনাময়?

তোমার বদনের কালো তিলে আজ অন্যের অধিকার; এ জ্বালায় আমি বাঁচতে পারবো না আর।

দোহাই লাগে সখি, অন্যের খাঁচার পাখি, মরণের আগে দেখা দিয়ো একটিবার!

আজ বিদায়ের দ্বারপ্রান্তে এসে তোমায় দেখতে ইচ্ছে হচ্ছে খুব; আরেকটিবার যাওয়ার দিনে দুঃখ দিও মোরে, এই আমার জীবনের শেষ আশ – বিদায় সখি, ফিলোমেন পাখি, আজ তোমার আমার ব্যবধান এক মহাকাশ!