Loading...

Category: ছোটগল্প

তৃপ্তি হোটেল

লোকে বলে আঁধার ঘনালে নাকি সূর্যোদয় হয় তবে রাজনের কাছে তা নিছক রূপকথার মত।কারণ প্রতি রাতের পরই যেন সে আবার একটি যুদ্ধের জন্য প্রস্তুতি শুরু করে।এই যুদ্ধঢাল তলোয়ার কিংবা বন্দুক [আরো…]

বাবা

লেখকঃ শাহরিয়ার হোসেন সিয়াম এস এস সি’২০ বগুড়া জিলা স্কুল, বগুড়া। তানভীর ৫ম শ্রেণিতে পড়ে। বগুড়া জিলা স্কুলে। অত্যন্ত মেধাবী ছাত্র। পিকনিৱে জন্য তানভীরের ১০০/- টাকার প্রয়ােজন হলাে সে তার [আরো…]

ক্ষুধা

লেখকঃ মো মাসুদুর রহমান সাগর এস এস সি’২০ বগুড়া জিলা স্কুল, বগুড়া শহুরের ব্যস্ততামাখা জীবনে আকাশ দেখার সময় টুকুনও জোটে না কখনও। তাই বলে আমি কোনো চাকুরিজীবী বা ব্যবসায়ী নই। [আরো…]

আত্মত্যাগ

আপনি যখন অবসরে আপনার জীবন অঙ্কের খাতাটি খুলে হিসাব নিকাশ করতে বসবেন, তখন দেখবেন আপনার জীবনের প্রাপ্তির খাতাটি শূন্য পক্ষান্তরে ব্যর্থতার খাতাটি পরিপূর্ণ।
তাই সবসময় অন্যের জন্য নিজের জীবনের সবটুকু সময় বিলিয়ে না দিয়ে নিজের জন্য কিছু সময় রাখুন।
নিজের ভালোলাগা, ভালোবাসা,শখ,ইচ্ছেগুলোর দাম নিজে দিন। কেননা অন্যের কাছে আপনার শখ আহ্লাদের কোন দাম নেই। এই সমাজ শুধু নিতে জানে; কিন্তু বিনিময়ে কিছুই আপনি পাবেন না শুধু অপমান, দুঃখ, কষ্ট ছাড়া।
সাইকোলজি বলে, যে মানুষ যত বেশি রাগারাগি করে সেই মানুষের তত বেশি ভালোবাসা দরকার।কিন্তু আমাদের এত সময় কই, আমাদের সমাজের চিত্রটা একটু অন্য রকম।
সমাজের এই অন্য রকম চিত্রটা দেখতে পায় মধ্যবিত্ত ও নিম্নবিত্ত পরিবারগুলো। এই পরিবারগুলোর প্রত্যেকটা সদস্য জানে আত্মত্যাগ কি জিনিস।
অনেকের মতে মধ্যবিত্তদের না কি বন্ধু থাকতে নেই।

বৃষ্টি

বর্ষা যেন সব ক্লান্তিকে দূর করে দেয়। জীবনের সব সুখ, দুঃখ, ভালোবাসা মিলেমিশে একাকার হয়ে যায়। বৃষ্টি আমরা কম বেশি সবাই ভালবাসি। কিন্তু করো করো মনে বৃষ্টি দখল করে নেয় একটি বিশেষ স্থান। তেমনি একটি সহজ সরল মেয়ে “মেঘলা” যে কিনা একটু বেশিই ভালোবাসে বৃষ্টিকে। ছোট বেলায় ওদের বাড়িটি ছিল মফস্বল এক শহরে। বড়ির সামনে ছিল বিরাট উঠোন, পড়ায় খেলার মাঠ , আম বাগান, পুকুর , আরো কত্ত কি। সব ই মেঘলার বড্ড প্রিয় ছিল। যখন বৃষ্টি নামতো,মেঘলা জানালায় বেশ আবেগ নিয়ে বৃষ্টি দেখতো। প্রতিটি ফোটার ধ্বনি যেন সুন্দর মৃদু সঙ্গীত এর মতো লাগত ওর কাছে। ঝড়ের সময় সবাই যখন ঘরের কোণে চলে যেত, এক মেঘলাকেই দেখা যেত মহানন্দে আম কুড়াতে। এর জন্য জ্বর বাধিয়ে শুয়ে থাকতে হতো ওকে মাঝে মাঝে। তখন মা ওকে একদমই বৃষ্টিতে ভিজতে দিতেন না ,আর বলতেন “এখন থেকে তোমার বৃষ্টিতে ভেজা বরণ।”

বন্ধু

১. গাছের ডালে বাসা বেধেছে উবুরা৷ উবু ডালে হেলান দিয়ে শুয়ে আসে। তার মা বাসার ভেতরে গেছে। উবু উড়ে উড়ে পাশের বাগানে যায়। ও, তোমাদের তো বলাই হয়নি! উবু হলো [আরো…]

বৃদ্ধাশ্রম

  ‘একটু তাড়াতাড়ি নামবে তো রিকশা থেকে।আমার অফিসের লেট হয়ে যাচ্ছে।’ ‘হ্যা বাবা নামছি।তুই যা আমি আসছি তোর পেছনে পছনে।’ ‘এই রিকশাওয়ালা ব্যাগগুলো ভিতরে নিয়ে আসো।’ আজ থেকে আবির ভেজাল [আরো…]

ভূতবন্ধু

জমিদার বাড়িতে আজ নিতুর ১২তম জন্মদিন পালন করা হচ্ছে। যার অনুষ্ঠান করার জন্য জমিদার পরিবার তাদের বাড়ির পাশে থাকা অনেক গাছ কেটে ফেলে। আর পরিকল্পনামত সেখানে ধুমধাম করে নিতুর জন্মদিন [আরো…]

ফিলোমেন – ২

রমজান মাস। রাব্বি তখন রাতে ছাত্র পড়িয়ে বাড়ি আসার জন্য গাড়ি খুঁজছে। হঠাৎ তার ফোন বেজে উঠলো। তার বন্ধুর বাসা থেকে তার বন্ধুর মা ফোন দিচ্ছে। তখন রাব্বির মনে পড়ে [আরো…]

স্বপ্ন

  পড়াশোনা শেষে বিছানায় গা এলিয়ে দিয়ে কখন যে ঘুমিয়ে পড়লাম। একটু পর দেখতে শুরু করলাম এক মজার স্বপ্ন। এ সম্পর্কেই বলবো আজ। চারদিকে দেখি শুধু গাছ আর গাছ। হেটে [আরো…]